রবিবার
২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
২৩শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

সুনামগঞ্জে নিরীহ ব্যক্তির দেয়াল নির্মাণের মালামাল লুটপাটের অভিযোগ

প্রতিবেদক:  Shomoy News 24    প্রকাশের সময়: 01/08/2019  9:26 PM

মহিবুর রেজা টুনু, সময় নিউজ ২৪ ডটনেট, সুনামগঞ্জ: দক্ষিণ সুনামগঞ্জে প্রতিপক্ষ কর্তৃক নিরীহ ব্যক্তির দেয়াল নির্মার্ণের লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিরীহ ব্যক্তি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন গ্রামের মৃত অনন্ত মোহন চন্দ্রের পুত্র অভিনাশ চন্দ্র অনুকূল। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় নিজের জায়গাতেও সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করতে পারছেন না তিনি। অভিনাশ চন্দ্র অনুকুল অসহায় অবস্থায় কোন উপায়ন্তর না পেয়ে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ জোন) সুনামগঞ্জে একই গ্রামের মৃত পুলিন পালের পুত্র হিরেশ পাল ও মৃত রামচরণের পুত্র রনজিত পাল, মৃত তরনি পালের পুত্র তমেশ পাল, মৃত কুঞ্জ মোহন পালের পুত্র কুমুদ পাল, মৃত পরেশ পালের পুত্র পঞ্জজ পাল, মৃত মাখন পালের পুত্র নিবাস পাল, সুবাশ পাল, মৃত অভিনাশ পালের পুত্র অশক পাল, মৃত হরিপালের পুত্র প্রদীপ পাল, প্রনয় পাল, মৃত পুলিন পালের পুত্র ভজন পাল, মৃত রনজিত পালের পুত্র রিপন পাল ও তরনি পালের পুত্র প্রানেশ পালের বিরুদ্ধে গত ০৩ জুন ২০১৯ ইং তারিখে অভিযোগ দায়ের করেছেন। যাহার মোকদ্দমা নং ৭৩/১৯ দক্ষিণ সুনামগঞ্জ। অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বিগত ৩০ মে ২০১৯ ইং তারিখে অভিনাশ চন্দ্র অনুকূল পাগলা শত্রুমর্দণস্থ তাহার নিজস্ব মালিকানাধীন জায়গায় সীমানা প্রাচীর নির্মান করার জন্য নির্মাণ সামগ্রী ক্রয় করে কাজ শুরু করলেও প্রতিপক্ষের বাধায় প্রাচীর নির্মাণ করতে পারেন নি। কাজ চলাকালীন অবস্থায় উপরে নামাঙ্কিত ব্যক্তিরা অভিনাশের কাছে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা চায়। তিনি চাঁদা না দেয়ায় বিবাদীরা জোর পূর্বক অভিনাশের সীমানা প্রাচীর নির্মানের জন্য থাকা রড, সিমেন্ট, ইট, বালি, পাথর, ইত্যাদি লুট করে নিয়ে যায়। যার মূল্য আনুমানিক ১ লক্ষ ৭৮ হাজার টাকা। অভিনাশ নির্মান সামগ্রী লুটপাটে বাধা দিলে প্রতিপক্ষ তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। মামলা মোকদ্দমা করলে থাকে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকিও দেয়। ঘটনার কথা পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। শেষমেষ অভিনাশ চন্দ্র কোন উপায় না পেয়ে উপরোলি¬খিত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন। এ ব্যপারে জমির মালিক অভিনাশ চন্দ্র অনূকুল বলেন, আমি নিরীহ মানুষ। প্রভাবশালীদের চাঁদা না দেয়ায় নিজস্ব জায়গাতেও সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করতে পারছি না। প্রতিপক্ষ আমাকে হুমকি দিয়েছে আমি মামলা মোকদ্দমায় জড়ালে আমাকে হত্যা করে আমার লাশ গুম করবে। এমতবস্থায় আমি জীবনের ঝুঁকিতে আছি। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ হিরেশ পালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা কোন মালামাল লুটপাট করি নাই।
এব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশীদ চৌধুরী মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে।

Site Develop by : Shekh Mostafizur Rahman Faysal