বৃহস্পতিবার
১৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং
২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
১৮ই সফর, ১৪৪১ হিজরী

আওয়ামী লীগ নেতার ছবি বিকৃত করে ফেইসবুকে, নারীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রতিবেদক:  Shomoy News 24    প্রকাশের সময়: 19/09/2019  6:28 PM

মহিবুর রেজা টুনু, সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জ দিরাই উপজেলার চরনাচর ইউনিয়নের লৌলারচর গ্রামে ফেইসবুকে ছবির মধ্যে জুতার মালা পড়িয়ে প্রদর্শন করার অপরাধে চঞ্চলা রানী দাস নামে এক প্রবাসী নারীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এ ঘটনায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর জগদীশ সামন্তর ভাতিজা অঞ্জন সামন্ত বাদী হয়ে চঞ্চলা রানী দাস সহ ৪ জনের নাম উল্লেখ করে দিরাই থানা অভিযোগ দায়ের করেন। বাকি অভিযুক্তরা হলেন, শ্যামারচর গ্রামের বাসিন্দা সেলিম মিয়ার ছেলে বশির আহমদ(৪১), মাইতি গ্রামের রুস্তম মিয়ার পুত্র রুকুনুজ্জামান জহুরী (৩৫),শাল্লা থানার উজানগাও গ্রামের মৌলভী তারা মিয়ার ছেলে শিশির আহমেদ(৩১)প্রমুখ।
ঘটনা ও অভিযোগ সুত্রে জানাযায় গত ১৩ই সেপ্টেম্বর এই ঘটনার সূত্রপাত হয়। জানাযায় অভিযুক্ত এই প্রবাসী নারী চঞ্চলা রানী দাস(৪০),দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম বীরগাও ইউনিয়ন টাইলা গ্রামে পিতার বাড়ি হলেও তিনি বর্তমানে দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের লৌলাচর গ্রামে জায়গা কিনে বসবাস করছেন এবং এলাকার বিভিন্ন লোকের সাথে টাকা পয়সা লেনদেন করেন। তার দেনা পাওনা নিয়ে বিভিন্ন সময় এলাকার মানুষের সাথে ঝগড়া বিবাদ লেগেই আছে তার। তিনি অসামাজিক কার্যকলাপে ও তিনি লিপ্ত রয়েছেন বলে ও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করো হয়। । এছাড়াও তিনি তার কিছু মনোনীত খারাপ প্রকৃতির লোকজন নিয়ে এলাকার গুনীজনদের বিভিন্নভাবে হয়রানী করা যেন তার নিত্যদিনের কাজ হয়ে দাড়িয়েছে। তারই ধারা বাহিকতায় গত ১৩ই সেপ্টেম্বর সকালে ঐ চরনারচর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও দিরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জগদীশ সামন্ত ও তার ভাতিজা অঞ্জন সামন্ত এর ছবির ব্যানারে লাগিয়ে জুতার মালা পড়িয়ে ছবি বিকৃত করে চঞ্চলা রানীর নেতৃত্বে ১০/১২জন ভাড়াটিয়া সস্ত্রাসীরা ব্যানার পেষ্ঠুন বানিয়ে তাদের ছবির মাঝে জুতার মালা পড়িয়ে রাস্তা প্রদর্শন ও এলাকায় শোডাউন করে এবং তাদের ফেইসবুক আইডিতে ভাইরাল করে মানসম্মান ক্ষুন্ন করেন। ।
এ ব্যপারে দিরাই থানা অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ইসলাম অভিযোগ দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং তদন্তে ঘটনা প্রমাণিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনহত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Site Develop by : Shekh Mostafizur Rahman Faysal